ই-পেপার মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম: ভৈরবে কোটা আন্দোলনকারী ও র‌্যাব-পুলিশের সংঘর্ষ, টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ        বিহারে বিদ‍্যুতের তারে তাজিয়া, বিদ‍্যুৎস্পৃষ্ট ২৪       ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিক্ষোভ চলছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের টিয়ারশেল নিক্ষেপ        পাটের সোনালী আঁশে লাভের স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা        ঢাকাসহ সারাদেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন       কোটা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলায় জাতিসংঘের উদ্বেগ       গ্রাম আদালতের বিচারের প্রতি মানুষের আস্থা বাড়ছে, কমছে হয়রানী-জটিলতা      




গবেষণা ফলাফল
হাসপাতাল চত্ত্বরে ধূমপানের হার ৮৮ শতাংশ
স্টাফ রিপোর্টার
Published : Wednesday, 12 June, 2024 at 5:56 PM
হাসপাতাল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শতভাগ ধূমপানমুক্ত থাকার কথা থাকলেও ৮৮ শতাংশ হাসপাতাল এবং ৫৮ শতাংশ  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভেতর ধূমপানের চিত্র এক গবেষণায় উঠে এসেছে। টোব্যাকো কন্ট্রোল এন্ড রিসার্চ সেল (টিসিআরসি) এর চালানো গবেষণায় দেখা গেছে, পাবলিক প্লেস ও পরিবহনে ধূমপান নিষিদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও ৫৭ শতাংশ পাবলিক প্লেসে এবং ৪৪ শতাংশ পাবলিক পরিবহণে ধূমপান করতে দেখা গেছে। বিভাগীয় শহরগুলোতে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নের অবস্থা সংক্রান্ত গবেষণায় দেখা যায়, ৪২ শতাংশ পাবলিক প্লেসে এবং ৩৭ শতাংশ পাবলিক পরিবহনে ধূমপানমুক্ত সাইন পাওয়া গেছে। হাসপাতাল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শতভাগ ধূমপানমুক্ত থাকার কথা থাকলেও ৮৮ শতাংশ হাসপাতাল এবং ৫৮ শতাংশ  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভেতর ধূমপান করতে দেখা গেছে। ১০০ শতাংশ লঞ্চ-ফেরীতে ধূমপান করতে দেখা গেছে। পাবলিক প্লেস ও পাবলিক পরিবহনে ধূমপান শুধু ধূমপায়ীকেই নয়, আশেপাশের সকলকে পরোক্ষ ধূমপানের ক্ষতি করছে।

বুধবার বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের সম্মেলন কক্ষে টোব্যাকো কন্ট্রোল এন্ড রিসার্চ সেল, ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ডেভলপমেন্ট এ্যাকটিভিটিস অফ সোসাইটি (ডাস্) ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের সম্মিলিত উদ্যোগে আয়োজিত “পাবলিক প্লেস ও পাবলিক পরিবহণে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নের অবস্থা” শীর্ষক গবেষণার ফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়। সম্প্রতি ‘৮টি বিভাগীয় শহরে এ পর্যবেক্ষণমূলক গবেষণাটি চালানো হয়।

গবেষণার সুপারিশে বলা হয়েছে সকল পাবলিক প্লেস ও পরিবহনে ধূমপানমুক্ত সাইন স্থাপন নিশ্চিত করতে হবে, এছাড়াও আইন লঙ্ঘন  করে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী ছাড়াই তামাকজাত দ্রব্যে বিক্রয় করলে মামলা করাসহ তামাকজাত দ্রব্যে বিক্রয়ে লাইসেন্স বাধ্যতামুলক করতে হবে। পাশাপাশি জেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভায় সিনিয়র স্বাস্থ্য কর্মকর্তা/ স্যানিটারি কর্মকর্তার মাধ্যমে আইনভঙ্গ সংক্রান্ত মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা এবং মনিটরিং রির্পোট সভায় উপস্থাপন করতে হবে। এছাড়া  নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা এবং এর প্রতিবেদন টাস্কফোর্স কমিটি ও জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলে প্রেরণ জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার মনিটরিং এ তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের বিষয়টিও মনিটরিং করা জরুরি।

অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের উপদেষ্টা মোজাফ্ফর হোসেন পল্টু, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব ও জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের পরামর্শক হোসেন আলী খোন্দকার, ট্যুরিস্ট পুলিশ ঢাকা রিজিওনের পুলিশ সুপার মো. নাইমুল হক পিপিএম, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহণ কর্পোরেশন (বিআইডাব্লিউটিসি)-এর মহাব্যবস্থাপক(প্রশাসন) জেসমিন আরা বেগম, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি)’র ব্যবস্থাপক মোস্তাফিজুর রহমান, ডাস্-এর সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মোয়াজ্জেম হোসেন টিপুসহ আরও অনেকে।







সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত এবং মনিরামপুর প্রিন্টিং প্রেস ৭৬/এ নয়াপল্টন, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]