ই-পেপার মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম: ভৈরবে কোটা আন্দোলনকারী ও র‌্যাব-পুলিশের সংঘর্ষ, টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ        বিহারে বিদ‍্যুতের তারে তাজিয়া, বিদ‍্যুৎস্পৃষ্ট ২৪       ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিক্ষোভ চলছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের টিয়ারশেল নিক্ষেপ        পাটের সোনালী আঁশে লাভের স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা        ঢাকাসহ সারাদেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন       কোটা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলায় জাতিসংঘের উদ্বেগ       গ্রাম আদালতের বিচারের প্রতি মানুষের আস্থা বাড়ছে, কমছে হয়রানী-জটিলতা      




সূরা আল-ফাতিহা, বাংলা উচ্চারণ অর্থ ও ফজিলত
ধর্ম ডেস্ক
Published : Wednesday, 10 July, 2024 at 4:01 PM
সুরা ফাতিহা পবিত্র কুরআনুল কারিমের প্রথম সুরা। সুরাটি কুরআনের নির্যাস। কুরআনের বাকি ১১৩টি সুরা আসলে সুরা ফাতিহারই ব্যাখ্যা। পুরো কুরআনে মূলত তিনটি বিষয় আলোচনা করা হয়েছে।

আল্লাহতায়ালার পরিচয়, আল্লাহপাকের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক, আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের সন্তুষ্টি লাভের জন্য মানুষের করণীয় ও বর্জনীয়। সুরা ফাতিহায় এ তিনটি বিষয় খুব চমৎকারভাবে বলে দেওয়া হয়েছে।

হজরত আবু হুরাইরা (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) একদিন উবাই ইবনে কাবকে (রা.) জিজ্ঞেস করলেন, তুমি কীভাবে নামাজে কুরআন পড়?

তিনি সুরা ফাতিহা পড়ে শুনালেন। তখন রাসুল (সা.) বললেন, কসম সেই আল্লাহর, যার হাতে আমার জীবন, সুরা ফাতিহার মতো কোনো সুরা না তওরাতে নাজিল হয়েছে, না ইঞ্জিলে, না জাবুরে আর না কুরআনে নাজিল হয়েছে।’ (সুনানে তিরমিজি, হাদিস ২৮৭৫; মিশকাত, হাদিস ২১৪২)।

হজরত আবদুল মালেক ইবনে ওমায়ের (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, সুরা ফাতিহা সব রোগের মহাওষুধ।’- (সুনানে দারেমি, হাদিস ৩৪১৩; মিশকাত, হাদিস ২১৭০)।

মিশকাত শরিফের ব্যাখ্যাকার মোল্লা আলী কারী (রহ.) মিরকাতুল মাফাতিহে বলেন, ‘সুরা ফাতিহার অক্ষর, শব্দ পড়াতে যেমন শেফা আছে তেমনি লেখাতেও শেফা আছে। যে কোনো ধরনের রোগ চাই দ্বীনি হোক কিংবা পার্থিব, অনুভবযোগ্য হোক বা না হোক সব কিছু এ সুরা পড়া বা লেখার বরকতে আল্লাহর ইচ্ছায় আরোগ্য হবে।’

হজরত আবু সাঈদ ইবনে মুআল্লা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী (সা.)-এর কয়েকজন সাহাবি আরবের এক গোত্রে এলেন। গোত্রের লোকেরা তাদের কোনো মেহমানদারি করল না। হঠাৎ ওই গোত্রের নেতাকে সাপে কাটে। তখন তারা এসে বলল, আপনাদের কাছে কি কোনো ওষুধ আছে?

তারা উত্তর দিলেন, হ্যাঁ, আছে। তবে তোমাদের আমাদের মেহমানদারি করতে হবে। আমরা প্রচণ্ড ক্ষুধার্ত। তারা মেহমানদারি করতে রাজি হল। এ ছাড়া আমরা তাদের কাছে একপাল বকরি চাইলাম। তখন একজন সাহাবি উম্মুল কুরআন অর্থাৎ সুরা ফাতিহা পড়ে মুখে থুথু জমা করে সে ব্যক্তির ক্ষতে মেখে দিলেন। ফলে বিষ নেমে গেল এবং সে সুস্থ হয়ে গেল।

সাহাবিরা খাওয়া-দাওয়া করে নবী করিম (সা.)-এর কাছে বকরিসহ ফিরে এলেন। তারা রাসুল (সা.)-এর কাছে জানতে চাইলেন তাদের এ ধরনের কাজ ঠিক হল কি না। নবী (সা.) শুনে মুচকি হাসলেন এবং বললেন, তোমরা কীভাবে জানলে যে, সুরা ফাতিহায় শেফা রয়েছে। ঠিক আছে বকরিগুলো নিয়ে যাও এবং তাতে আমার জন্যও একটি অংশ রেখে দিও।’ (বুখারি, হাদিস ৫০০৬।)

সুরা ফাতিহা যে কোনো রোগের জন্য ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। তাই বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পেতে চিকিৎসা বিজ্ঞানের পরামর্শগুলো মেনে চলার পাশাপাশি আমরা সুরা ফাতিহার আমলও করতে পারি।

সুরা ফাতিহার আরবি ও বাংলা উচ্চারণ:

الْحَمْدُ لِلَّهِ رَبِّ الْعَالَمِينَ আলহামদু লিল্লাহি রাব্বিল আলামিন

الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ আর রাহমানির রাহিম

مَالِكِ يَوْمِ الدِّينِ  মালিকি ইয়াওমিদ্দিন

إِيَّاكَ نَعْبُدُ وَإِيَّاكَ نَسْتَعِينُ ইয়্যাকা নাবুদু ওয়া ইয়্যাকা নাস্তায়িন

اهْدِنَا الصِّرَاطَ الْمُسْتَقِيمَ ইহদিনাছ ছিরাতল মুস্তাকিম 

صِرَاطَ الَّذِينَ أَنْعَمْتَ عَلَيْهِمْ غَيْرِ الْمَغْضُوبِ عَلَيْهِمْ وَلَا الضَّالِّينَ

ছিরাতল্লাজিনা আনআমতা আলাইহিম, গয়রিল মাগদুবি আলাইহিম ওয়ালাদ্দল্লিন

সুরা ফাতিহার অর্থ:

১.সমস্ত প্রশংসা বিশ্বজগতের প্রতিপালক আল্লাহরই।

২.যিনি পরম করুণাময়, পরম দয়াময়;

৩.বিচার দিনের মালিক।

৪.আমরা তোমারই উপাসনা করি, তোমারই সাহায্য প্রার্থনা করি;

৫.তুমি আমাদের চালিত করো সঠিক পথে,

৬.তাদের পথে, যাদের তুমি অনুগ্রহ দান করেছ,

৭.যারা (তোমার) রোষে পতিত হয়নি, পথভ্রষ্ট হয়নি।







সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত এবং মনিরামপুর প্রিন্টিং প্রেস ৭৬/এ নয়াপল্টন, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]